কর ফাঁকি: মার্সেলো ৭ কোটি টাকা জরিমানা দিতে রাজি

খেলাধূলা

মার্সেলোর বিপক্ষে ৪ লাখ ৯০ হাজার ইউরো কর ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগ এনেছিল স্প্যানিশ কর কর্তৃপক্ষ। এ জন্য তাঁকে সাড়ে ৭ লাখ ইউরো জরিমানার সঙ্গে চার মাসের স্থগিত কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছিল। মার্সেলো জরিমানা দিতে সম্মত হয়ে এই ঝামেলা এড়ালেন।

ইউরোপের ক্লাব ফুটবলে খেলোয়াড়দের কর ফাঁকির বিষয়টি নতুন কিছু নয়। লিওনেল মেসি কিংবা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর মতো তারকারাও এই ঝামেলায় জড়িয়েছেন। মার্সেলো অবশ্য এদিক থেকে এক কাঠি সরেস। কর ফাঁকি দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে জরিমানাও মেনে নিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের ব্রাজিলিয়ান এই উইঙ্গার।

মার্সেলোর বিপক্ষে কর ফাঁকির অভিযোগ উঠেছিল গত অক্টোবরে। স্পেনের কর কর্তৃপক্ষ এ জন্য তাঁকে ৪ মাসের স্থগিত কারাদণ্ডের সঙ্গে সাড়ে ৭ লাখ ইউরো জরিমানা করে। বাংলাদেশি মুদ্রায় জরিমানার অঙ্কটা প্রায় ৭ কোটি ২৮ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, স্পেনের কর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে রফা করতে মার্সেলো এ জরিমানা দিতে সম্মত হয়েছেন। আর তাঁকে জেলও খাটতে হবে না। স্প্যানিশ আইন অনুযায়ী, কোনো ব্যক্তি দুই বছর বা তার নিচে কারাদণ্ডাদেশ পেলে এবং সেটি যদি প্রথম অপরাধ হয় তবে তাঁকে জেলে যেতে হবে না, পর্যবেক্ষণে থাকলেই চলবে।

রিয়ালের ৩০ বছর বয়সী এই তারকার বিপক্ষে অভিযোগ ছিল, বৈদেশিক ফার্মের সহযোগিতা নিয়ে তিনি নিজের আয় বিবরণীতে কারচুপি করেছেন। তাঁর ফাঁকি দেওয়া করের পরিমাণ ৪ লাখ ৯০ হাজার ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৪ কোটি ৭৬ লাখ ১৮ হাজার টাকা)। স্প্যানিশ ফুটবলে এর আগে কর ফাঁকির মামলায় মেসি-রোনালদোর সঙ্গে নেইমারের নামও জোরালোভাবে উচ্চারিত হয়েছে। এ ছাড়া ডি মারিয়া, লুকা মদরিচ, হাভিয়ের মাচেরানোরাও কর ফাঁকির ঝামেলায় পড়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *