জয় হলো রোনালদোরই

খেলাধূলা

জুভেন্টাসের চোখ এবার চ্যাম্পিয়নস লিগ শিরোপায়। ইউরোপের এই লিগে রোনালদোর চেয়ে সফল আর কজন আছে! সে জন্যেই এই রোনালদোকে ১০০ মিলিয়ন ইউরো খরচ করে দলে ভেড়াতে একটুও ভাবেনি জুভেন্টাস। অথচ চ্যাম্পিয়নস লিগে মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই বিতর্কিত এক সিদ্ধান্তের বলি হলেন সাবেক এই রিয়াল তারকা! লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লেন প্রথমার্ধের খেলা শেষ না হতেই। টেলিভিশন রিপ্লে দেখে যা বোঝা গেল- যে লাল কার্ড দেখতেন ভ্যালেন্সিয়ার খেলোয়াড় সেই কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন রোনালদো।
নিজেদের সেরা অস্ত্র হারিয়ে ভেঙে চুরমার হয়ে পড়েনি জুভেন্টাস। বরং কাঁটা দিয়ে কাঁটা তুলেছে। নিয়েছে প্রতিশোধ। ভ্যালেন্সিয়ার জালে জড়িয়েছে ২ গোল। দুটিই পেনাল্টি থেকে। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে ভ্যালেন্সিয়াও একটা পেনাল্টি পায়। কে জানে রোনালদোর প্রতি অবিচার থেকেই শক্তি সঞ্চয় করা জুভেন্টাস গোলরক্ষক ভ্যালেন্সিয়ার অধিনায়কের শট আটকে দেন দুর্দান্ত ভাবে। ভ্যালেন্সিয়ার মাঠে জয় হলো রোনালদোরই।

…….

শুরু থেকে বল দখল নিয়ে খেলতে থাকা ভ্যালেন্সিয়ার আক্রমণে প্রথম হানা দেয় জুভেন্টাসই। দশ মিনিটের মাথায় রোনালদো প্রতিপক্ষের জালে প্রথম শট নেন। ভ্যালেন্সিয়ার খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে বল মাঠের বাইরে যায়। পরের মিনিটেই ফের আক্রমণে উঠে আসে জুভেন্টাস। বার্নাদেশিচের শট গোলপোস্টের ওপর দিয়ে চলে যায়। ১৭তম মিনিটে রোনালদোর ক্রস থেকে বল পেয়ে সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন স্যামি খেদিরা। ২১ মিনিটে আরেকবার সুযোগ নষ্ট করে জুভেন্টাস। এরপর আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে খেলা চলে। ম্যাচের ৩০ থেকে ৩১ মিনিটে কী ঘটনা ঘটেছে এতক্ষণে জেনেছেন নিশ্চয়।

………
রোনালদোকে উঠে যাওয়ার পর কিছুটা রয়েসয়ে রক্ষণ গুছিয়ে খেলে জুভেন্টাস। পাল্টা আক্রমণ থেকে গোল দেওয়ার মন্ত্র জপতে থাকে জুভেন্টাসের খেলোয়াড়েরা। বেশ কিছু গোলের সুযোগ পেলেও বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হয় দুই দলই। ৪৩ মিনিটে পেনাল্টি আদায় করে জুভেন্টাস। পিজানিচের ঠাণ্ডা মাথার স্পটকিক সহজেই স্বাগতিকদের জালে জড়ায়।

……….
প্রথমার্ধের খেলা শেষ হয় ১-০ স্কোরলাইনে। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা মিনিট পাঁচেক চলার পর মুরিলোর ফাউলের শিকার হন জুভেন্টাসের খেলোয়াড়। পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে দ্বিধা করেননি রেফারি। এবারও সহজেই বল জালে জড়ান পিজানিচ। গোল পরিশোধে মরিয়া ভ্যালেন্সিয়া কোনো ভাবেই জুভেন্টাসের রক্ষণ ভেদ করতে পারছিলেন না। নির্ধারিত সময়ের খেলা শেষ। শেষ হতে চলল যোগ হওয়া সময়ের খেলাও। কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানে আক্রমণে ওঠা ভ্যালেন্সিয়ার খেলোয়াড় পেনাল্টি আদায় করে নেন। তবে তাতে কাজের কাজ হয়নি। জুভেন্টাসের গোলরক্ষক দুর্দান্ত ভাবে পেনাল্টি শট আটকে দিলে গোল ব্যবধান কমাতে ব্যর্থ হয় ভ্যালেন্সিয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *