নওয়াজ শরিফের বিরুদ্ধে কারাদণ্ডাদেশের রায় স্থগিত করেছেন ইসলামাবাদ হাইকোর্ট

আন্তর্জাতিক

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের বিরুদ্ধে কারাদণ্ডাদেশের রায় স্থগিত করেছেন ইসলামাবাদ হাইকোর্ট। আজ বুধবার হাইকোর্ট এ সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন। নওয়াজের সঙ্গে তাঁর মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ ও মরিয়মের স্বামী মোহাম্মদ সফদারের বিরুদ্ধে দণ্ডাদেশের রায়ও স্থগিত করা হয়েছে।

ডন নিউজের খবরে বলা হয়, ইসলামাবাদ হাইকোর্টের এই আদেশের ফলে নওয়াজ, মরিয়ম ও সফদার মুক্তি পেতে যাচ্ছেন। বাকি আনুষ্ঠানিকতা শেষ হলে যেকোনো সময় তাঁরা মুক্তি পাবেন।

দুর্নীতির দায়ে গত ৬ জুলাই নওয়াজ শরিফকে ১০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন আদালত। তাঁর মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে সাত বছর ও সফদারকে এক বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন দেশটির অ্যাকাউন্টিবিলিটি আদালত। পাশাপাশি নওয়াজকে ৮০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড ও মরিয়মকে ২০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড জরিমানা করা হয়। ১২ জুলাই নওয়াজ ও মরিয়ম লন্ডন থেকে লাহোরে ফিরলে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। সফদারকে তার আগেই গ্রেপ্তার করে কারাগারে নেওয়া হয়।

ইসলামাবাদ হাইকোর্টে নওয়াজ, মরিয়ম ও সফদারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানি শেষে আদালত তাঁদের বিরুদ্ধে দণ্ডাদেশের রায় স্থগিত করেন।

আদালতের এই রায়ের পর আদালত কক্ষ ও এর বাইরে উপস্থিত নওয়াজের সমর্থকেরা উল্লাস প্রকাশ করেন। তাঁরা নওয়াজের পক্ষে নানা স্লোগান দেন।

এ সময় বিচারপতি আতহার মিনাল্লাহ অ্যাকাউন্টিবিলিটি আদালতের কৌঁসুলি মোহাম্মদ আকরাম কুরেশির উদ্দেশে বলেন, নওয়াজ শরিফ যে অ্যাভেনফিল্ড অ্যাপার্টমেন্টের মালিক—তার পক্ষে অকাট্য দলিল দেখাতে পারেননি। সে ক্ষেত্রে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা ‘বেনিফিট অব ডাউট’ পেতে পারেন। এরপর আদালত নওয়াজ, মরিয়ম ও সফদারের বিরুদ্ধে সাজার রায় স্থগিতের ঘোষণা দেন।

 

 

নব্বইয়ের দশকে লন্ডনের পার্ক লেনের অ্যাভেনফিল্ড হাউসে চারটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট কেনে নওয়াজের পরিবার। তদন্তের পর পাকিস্তানের জাতীয় জবাবদিহি সংস্থা ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি ব্যুরোর (এনএবি) কৌঁসুলিরা আদালতকে জানান, নওয়াজের পরিবার এই ফ্ল্যাটগুলি কেনার অর্থের বৈধ আয় দেখাতে পারেননি। জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ দিয়ে এসব ফ্ল্যাট কেনা হয়েছে। এই মামলায় দণ্ড দেওয়া হয় নওয়াজ, মরিয়ম ও সফদারকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *