৬ মে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ফল প্রকাশ করা হবে

আগামী ৬মে সোমবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ফল প্রকাশ করা হবে। আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক শুক্রবার সংবাদ মাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক বলেন, ‘আগামী ৬ মে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী দেশে না থাকায় আমরা ওইদিন শিক্ষামন্ত্রীর কাছে পরীক্ষার ফলাফলের সার-সংক্ষেপ তুলে দেব। ওইদিন সকাল সাড়ে ১০টায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশ করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।’

অন্যান্য বছর সাধারণত প্রধানমন্ত্রীর হাতে ফলাফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেন শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানরা। পরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষামন্ত্রী ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি সফরে লন্ডনে অবস্থান করায় এবার সেই ব্যবস্থার ব্যত্যয় হলো।

গত ২৪ এপ্রিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সরকারি মাধ্যমিক) নাজমুল হক খান জানিয়েছিলেন, আগামী ৪ থেকে ৬ মে’র মধ্যে ফল প্রকাশ করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী সময় নির্ধারণ করে দিলে ৪, ৫ অথবা ৬ মে ফল প্রকাশ করা হবে।

এর আগে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড থেকে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশের জন্য ৪ থেকে ৬ মে সম্ভাব্য সময় উল্লেখ করে প্রস্তাব পাঠানো হয়। সেই প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়। এখন প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি নিয়ে এই ফল প্রকাশের দিন ঠিক করা হলো।

দেশের ১০টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে গত ২ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয়। ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৬ মার্চ পর্যন্ত ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ হয়। এ পরীক্ষায় সারাদেশে মোট ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। তাদের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষার্থী ১৭ লাখ ১০২ জন, দাখিল ৩ লাখ ১০ হাজার ১৭২ জন এবং এসএসসি ভকেশনালে ১ লাখ ২৫ হাজার ৫৯ জন পরীক্ষার্থী।

গত কয়েক বছর ধরে পরীক্ষা শেষের ৬০ দিনের মধ্যে পাবলিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হচ্ছে। আগামী ৯ মে পরীক্ষা শেষের ৬০তম দিন পূর্ণ হবে। ফলে এবার তার তিন দিন আগেই ফল প্রকাশ করা হচ্ছে।

…..

আরও পড়ুন

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি ও পরীক্ষাসহ সব ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ফি আদায় করা হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন নবনিযুক্ত শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, ভর্তির ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ফি আদায় নিয়মবহির্ভূত কাজ এবং অন্যায়।
গতকাল শুক্রবার চাঁদপুর সদরের বিভিন্ন ইউনিয়নে নেতা-কর্মীদের সাথে নির্বাচন পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়কালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শওকত ওসমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহেদ পারভেজ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটোয়ারী দুলাল, সহ-সভাপতি ওয়াদুদ টিপু প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।


শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, যে নিয়ম বেঁধে দেয়া আছে সেই নিয়ম মেনে শিক্ষার্থী ভর্তি করবেন। কোনো ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ফি আদায়ের প্রমাণ পাওয়া গেলে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
বছরের প্রথম দিন শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়া, প্রতিটি শিশুকে বিদ্যালয়মুখী করা, শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া রোধ ও বিদ্যালয়বিহীন গ্রামে বিদ্যালয় স্থাপনসহ শিক্ষা ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এসব সাফল্য এগিয়ে নিতে আগামী পাঁচ বছর এ ধারা অব্যাহত থাকবে। এছাড়া অন্য যেসব চ্যালেঞ্জ রয়েছে তা মোকাবিলা করা হবে। শিক্ষার মান উন্নয়নে যা কিছু প্রয়োজন তার সবকিছু করা হবে। এ ক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।


নতুন মন্ত্রিসভায় জায়গা পাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে বিশ্বাসে আমাদের মন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়েছেন আমরা তার সেই বিশ্বাসের মর্যাদা দিয়ে দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাব। মন্ত্রীত্ব পেয়ে যাতে নিজেদের মধ্যে অহংকার বোধ চলে না আসে সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের নজর রাখার আহ্ব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *